অল্প বয়সেই বুড়িয়ে যাওয়ার কারন

সকলেরই ধারণা, চুলে পাক ধরলে বা দাঁত পড়লেই তবে বুড়ো হওয়া যায়। কিন্তু জানেন কী কিছু বদ অভ্যাস আপনাকে অল্প বয়সেই বুড়ো করে দিতে পারে। জেনে নিন তেমনই কিছু বদ অভ্যাস। তাড়াতাড়ি বুড়িয়ে যেতে না চাইলে এগুলো পারতপক্ষে এড়িয়ে চলুন।

– অনেকেরই রাত জাগার প্রবণতা রয়েছে। রাত জাগা একেবারে বন্ধ করে দিন। প্রতিদিন রুটিন মাফিক সব কাজ সেরে তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়া উচিত। অতিরিক্ত রাত জাগার ফলে আপনার চোখের নিচে কালো দাগ পড়তে পারে। আবার অনেকেই রাত জাগার ফলে চোখে জ্বালা বা চুলকুনি অনুভব করেন। যার ফলে তারা চোখ রগড়াতে শুরু করেন। চর্মরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, এর ফলে চোখের চামড়া পাতলা হয়ে দ্রুত ঝুলে যেতে পারে। এতে স্বভাবতই বয়স অনেকটাই বেড়ে যায়।

– ধূমপান অবিলম্বে ত্যাগ করুন। সকলে জানেন ধূমপান ক্যান্সারের কারণ। কিন্তু তাছাড়াও এটির অপর একটি ক্ষতিকর দিকও রয়েছে। ধূমপান মানব শরীরের এনজাইম নষ্ট করে দেয়, যার ফলে দ্রুত শরীরে বার্ধক্যের ছাপ পড়ে।

– শরীরে একেবারেই মেদ জমতে দেবেন না। এমনকি মেদ যদি থেকে থাকে তবে তা এখুনি কমানোর চেষ্টা করুন। মিষ্টি খাবার খাওয়ার আগে সতর্ক হোন। মেদ হওয়ার পেছনে রয়েছে মিষ্টি খাবারের ভূমিকা। যাদের দেহে মেদ রয়েছে তাদের স্বভাবিকভাবেই বয়সের তুলনায় বয়স্ক দেখায়।

– কোমল পানীয় ছিনিয়ে নিতে পারে আপনার বয়সের জেল্লা। এমনকি স্ট্র দিয়ে কোমল পানীয় খেলে আপনার মুখে পড়তে পারে অজস্র বলিরেখা। যা আপনাকে অনেক বেশি বয়স্ক করে দিতে পারে।

– খুব বেশি চকলেট বা ফাস্টফুড খাওয়া থেকে সংযত থাকুন। কেননা এসব খাদ্যে আপনার শরীর ও ত্বকের ওপর উল্টো প্রভাব পড়তে পারে।

– মানসিক চাপ বা স্ট্রেস একেবারেই পুষে রাখবেন না। দুশ্চিন্তা ত্বকে বয়সের ছাপ ফেলে এবং আপনাকে বয়সের চেয়ে অনেক বেশি বুড়ো মনে হবে।

বুড়ো একদিন হতেই হবে। কিন্তু তাই বলে বয়সের আগেই বুড়িয়ে যাওয়া মোটেও ঠিক নয়। সে কারণে এসব অভ্যাস ছেড়ে দিয়ে নিজের তারুণ্য ধরে রাখুন আরো কিছু বছর।