এই মৌসুমে ঝলমলে ফর্সা ত্বক পাবার দারুণ উপায়

রুক্ষ আবহাওয়ার সময় সবারই দরকার ত্বকের ভালো যত্ন নেয়া। ত্বকের উপরিভাগ থেকে ময়লার কালো আস্তরণ সরিয়ে ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধির জন্য দরকার যত্নের। চলুন তবে দেখে নেয়া যাক সময় উপযোগী ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে 2 টি ফেইস মাস্ক।


রুক্ষ এবং শুষ্ক ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে কাঠবাদামের ফেইসমাস্ক –

শুষ্ক এবং রুক্ষ আবহাওয়ায় শুষ্ক ত্বক আরও বেশি রুক্ষ হয়ে পপড়ে। ত্বক ফেটে যায় এবং ত্বকে পপড়ে কালো ছোপ। তাই রুক্ষ ও শুষ্ক ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে ব্যবহার করুন কাঠবাদামের ফেইসমাস্ক।

এই ফেইস মাস্কের জন্য লাগবে ৫/৬ টি কাঠবাদাম এবং সামান্য দুধ। সকালে ৫/৬ টি কাঠবাদাম অর্ধেক কাপ দুধে ভিজিয়ে রাখুন। সারাদিন শেষে রাতে এই কাঠবাদাম এবং দুধ ভালো করে ব্লেন্ড করে পাতলা পেস্টের মত তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি রাতে ঘুমানোর আগে মুখে লাগান। ২ ঘণ্টা পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিনের ব্যবহারে ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি হবে। যদি পারেন তবে এই পেস্টটি সারারাত মুখে রাখার চেষ্টা করুন। এতে দ্রুত ফল ভালো পাবেন।

তৈলাক্ত ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে শসা এবং লেবুর রসের ফেইস মাস্ক –

আবহাওয়া অনেক রুক্ষ হওয়ায় বাতাসে ধুলোবালি বেশি হয় এই সময়। যাদের ত্বক তৈলাক্ত তাদের ত্বকে ধুলোবালি আটকে গিয়ে ত্বকের উপরিভাগ কালো চিটচিটে করে ফেলে এবং সৃষ্টি করে ব্রণ। তাই উজ্জলতা বৃদ্ধিতে এবং ব্রন থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন শসা এবং লেবুর রসের ফেইস মাস্ক।

এই ফেইস মাস্কটি তৈরি করতে লাগবে ১ টেবিল চামচ শসার রস, ১ চা চামচ লেবুর রস, ১ চা চামচ হলুদ গুড়ো এবং ১ চা চামচ মধু। সব কটি উপাদান একসাথে ভালো করে মিশিয়ে মসৃণ পেস্টের মত তৈরি করুন। এই মিশ্রণটি ত্বকে ভালো করে লাগান। ব্রাশ দিয়ে লাগাতে পারলে ভালো হয়। এই মাস্কটি মুখে লাগিয়ে রাখবেন মাত্র ১৫ মিনিট। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মাস্কটি তুলে ফেলুন। প্রতিদিন ব্যবহার করুন এই মাস্কটি।

মডেলঃ অভিনেত্রী পরিমনি
ছবিটি ইন্টারনেট হতে সংগৃহীত