কীভাবে মায়ের পেট কেটে বাচ্চা বের করা হয়? (দেখুন ভিডিও)

সিজার হচ্ছে মায়ের পেট ও জরায়ুর দেয়াল কেটে বাচ্চা প্রসব করানোর একটা পদ্ধতি। মা অথবা বাচ্চার কোনও সমস্যার কারনে সিজার করা হয়। সিজার করা হয় কোমরের নিচ থেকে অবশ করে। এর প্রভাব ৩০-৪৫ মিনিট পর্যন্ত থাকে।

যমজ বাচ্চা:
যমজ বাচ্চার ক্ষেত্রে তারিখের আগেই সিজার করে নিরাপদ প্রসব করানো যেতে পারে। যমজ বাচ্চারা মাঝে মধ্যে পেটের ভেতর উলটে থাকতে পারে বা লকড্ টুইনস্ অবস্থায় থাকতে পারে।

কোমরের নীচের অংশ (শ্রোনী) সরু হলে:
যদি মায়ের শ্রোনী সরু হয় এবং বাচ্চার মাথার স্থান সংকুলান না করতে পারে তবে যোনিপথে বাচ্চা প্রসব করা অসম্ভব হতে পারে। এমতাবস্তায় স্বাভাবিক প্রসব করার চেষ্টা করাও মা ও শিশুর জন্য ঝুঁকি হতে পারে।

বাচ্চার অবস্থান:
মায়ের জরায়ুর মধ্যে বাচ্চা উলটে থাকলে স্বাভাবিক প্রসবে মায়ের যোনিতে ক্ষত হবার সম্ভাবনা থাকে এমনকি প্রসবের এক পর্যায়ে বাচ্চার মাথা আটকে যেতে পারে।

মায়ের সমস্যা:
মায়ের কোনও সমস্যা যেমন- হার্টের অসুখ থাকলে স্বাভাবিক প্রসবের ধকল এড়াতে সিজার করা যেতে পারে।

বড় বাচ্চা :
বাচ্চা যদি বড় হয় (যেমন ডায়েবেটিক মায়েদের ক্ষেত্রে) তবে সিজার প্রয়োজন হতে পারে।

ভিডিওতে দেখুন কীভাবে পেট কেটে বাচ্চা বের করা হয় –