চুল ভাঙ্গা ও ছিঁড়ে যাওয়া নিয়ন্ত্রণ করার ৩টি ঘরোয়া হেয়ারমাস্ক

shajghor_Hair broken and mutilated control 3 domestic heyaramaskaআমাদের চুল নিয়মিত বড় হলেও বিরামহীনভাবে বিভিন্ন কেমিক্যাল, স্টাইলিং প্রোডাক্ট-এর ব্যবহারে আমাদের চুল ভেঙে যায়। আমাদের চুল কেরাটিন প্রোটিনের তৈরি। নানা অযত্নে ও অবহেলায় যখন চুলে প্রোটিনের অভাব দেখা দেয় তখনই চুল ভাঙ্গা সমস্যা দেখা দেয়। তাই এই সমস্যা প্রতিরোধের সবচেয়ে সহজ উপায় হলো চুলে প্রোটিনের অভাব দূর করা।

চুলকে তার সহজাত সৌন্দর্য আর উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে দিতে প্রোটিন ট্রিটমেন্টের তুলনা নেই। চলুন তাহলে জেনে নিই ঘরে বসেই চুল ভাঙা রোধ করার ৩টি অব্যর্থ্য হেয়ার মাস্ক-এর কথা।

১. ডিম ও মেয়োনিযের হেয়ার মাস্ক
এতোদিন জানতেন মেয়োনিয খাওয়ার জিনিস, কিন্তু শুনে অবাক হবেন, চুল ভাঙা প্রতিরোধে মেয়োনিয চমৎকার কাজ করে। এটি আপনার চুলকে পুষ্টি যোগায়, সাথে সাথে চুলে নরম ও উজ্জ্বল ভাবও নিয়ে আসে! আর ডিমে থাকা প্রোটিন চুলকে শক্তিশালী করে।

উপকরণ :
দুটি ডিম, আধ কাপ মেয়োনিয

পদ্ধতি:
বাটিতে দুটি ডিম ভেঙ্গে ভালো করে ফেটিয়ে নিন। এরপর এতে মেয়োনিয মিশিয়ে চামচ দিয়ে ভালো ভাবে নাড়ুন যেন দুটি উপকরণ একেবারে মিশে যায়। এরপর এই ক্রিমের মতো মাস্কটি চুলের আগা-গোড়ায় ভালোভাবে লাগান। খেয়াল রাখবেন যেন প্রতিটি চুলে মাস্কটি পৌঁছায়। মোটা দাঁতের চিরুনী দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন, এতে মাস্কটি ভালোভাবে চুলে লেগে যাবে। চুলে প্রসেসিং ক্যাপ পড়ে নিন। তোয়ালে গরম পানিতে ভিজিয়ে ক্যাপের চারপাশে পেঁচিয়ে নিয়ে এক ঘন্টা রাখুন। তোয়ালে ঠান্ডা হয়ে গেলে আবার গরম পানিতে ভিজিয়ে নেবেন।

এবার শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। মনে রাখবেন, গরম পানি ব্যবহার করবেন না। এই মাস্কটি মাসে দু বার ব্যবহার করুন। এটি চুল ভাঙা প্রতিরোধে অত্যন্ত কার্যকর।

২. ডিম ও মধুর তৈরি হেয়ার মাস্ক
ডিম প্রোটিনের একটি উল্লেখযোগ্য উৎস। আমাদের চুল মূলত প্রোটিনের তৈরি, তাই ডিমের ব্যবহার চুলের ফলিকলগুলোকে শক্তিশালী করে। এছাড়াও ডিম চুলকে করে নরম এবং সুন্দর, জট ছাড়াতে এবং ভাঙন প্রতিরোধে সহায়তা করে।

উপকরণ:
একটি ডিমের কুসুম, দু টেবিলচামচ অলিভ অয়েল, এক টেবিলচামচ মধু

পদ্ধতি:
সবগুলো উপকরণ একসাথে মিশিয়ে চুলে লাগান। ৩০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই মাস্কটি সপ্তাহে অন্তত একদিন ব্যবহার করুন। চুল ভাঙা চলে যাবে।

৩. দই-আমলকী হেয়ার মাস্ক ( মানে ঘরে বসেই চুলের প্রোটিন ট্রিটমেন্ট! )
দইয়ে থাকা প্রোটিন চুলকে রুক্ষ ও শুষ্ক হয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে, নতুন চুলও গজায়। দইয়ে আরো আছে জিঙ্ক ও ল্যা‌কটিক এসিড যা মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল বাড়ায়। আর আমলকীতে আছে ভিটামিন সি আর সাইট্রিক এসিড যা চুল মজবুত ও ঝলমলে করে।

উপকরণ:
৩ টেবিলচামচ টকদই, ২ টেবিলচামচ মীনা আমলা হেয়ার প্যাক, পরিমাণমত পানি।

পদ্ধতি:
সব উপাদান মিশিয়ে নিয়ে চুল ও চুলের গোড়ায় লাগিয়ে নিয়ে ৩০ মিনিট রাখুন। এরপর মীনা হারবাল কন্ডিশনিং শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতি সপ্তাহে দুদিন এভাবে চুলে লাগান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *