তৈলাক্ত ত্বকে ফেসিয়ালের আগে যে পাঁচটি কাজ করবেন!

ফেসিয়ালের করলে ত্বক পরিষ্কার, সতেজ ও উজ্জ্বল হয়। ফেসিয়াল ত্বকের গভীরে গিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে এবং মরা কোষ দূর করে। ফেসিয়ালের কারণে ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বেড়ে যায় এবং ত্বকের দাগ দূর হয়। এমনকি ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে না। কিন্তু ফেসিয়ালেরও কিছু নিয়ম রয়েছে। বিশেষ করে যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা ফেসিয়ালের আগে পাঁচটি কাজ অবশ্যই করবেন। না হলে ত্বকের উপকারের থেকে ক্ষতির মাত্রাই বেশি হবে।

১. স্ক্রাবিং –
ফেসিয়ালের facial আগে অবশ্যই স্ক্রাবিং করা প্রয়োজন। স্ক্রাবিং ত্বকের মরা কোষ দূর করে এবং লোমকূপের মুখ খুলে ময়লা বের করতে সাহায্য করে। আপনি চাইলে প্রাকৃতিক স্ক্রাব ব্যবহার করতে পারেন। চিনির সঙ্গে সামান্য মধু মিশিয়ে হালকাভাবে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে আপনার মুখ পরিষ্কার হবে এবং নরম ও মসৃণ হবে।

২. ক্লিনজার –
আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত Oily হয় তাহলে অবশ্যই প্রাকৃতিক ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নেবেন। এ ক্ষেত্রে দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়ে পুরো মুখে মেখে তুলা দিয়ে মুছে ফেলুন। এই ক্লিনজার মুখের তেল, ময়লা দূর করে সহজেই। এ ছাড়া ওটসের সঙ্গে টকদই মিশিয়ে ক্লিনজার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

৩. স্টিমিং –
স্টিমিং লোমকূপের মুখ খুলে তেল, ময়লা দূর করে। মনে রাখবেন, অবশ্যই ফেসিয়ালের আগে মুখে স্টিম (গরম পানির ভাব) দেবেন। এটি ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে ত্বককে আরো উজ্জ্বল এবং প্রাণবন্ত করতে সাহায্য করে। ১০ মিনিট মুখ তোয়ালে দিয়ে ঢেকে গরম পানির ভাব দিন। স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক পেতে স্টিম দেওয়া বেশ জরুরি।

৪. ময়েশ্চারাইজিং –
তৈলাক্ত ত্বকের Oily skin জন্য ময়েশ্চারাইজিং খুবই কার্যকরী। ক্লিনজিংয়ের পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করে কিছুক্ষণ পর ফেসিয়াল করুন। দেখবেন এতে ত্বক অনেক নরম ও মসৃণ হবে।

৫. টোনিং –
গোলাপজল প্রাকৃতিক টোনার হিসেবে বেশ কার্যকরী। এটি ত্বককে টানটান করে এবং ত্বকের বাড়তি তেল, ময়লা দূর করে। ত্বকের সুস্থতায় ফেসিয়ালের আগে টোনার ব্যবহার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *