সহজ ৭টি কৌশলে নিজেকে সম্মানিত ও সেরা করে তুলুন

হ্যাঁ, আকর্ষণীয় ও সবার চোখে সম্মানিত আমরা সকলেই হতে চাই। সকলের মাঝে সেরা হতে আপনার দেখতে ভীষণ সুন্দর হবার প্রয়োজন নেই, অনেক অর্থ কিংবা লেখাপড়ায় অসাধারণ ভালো হবার প্রয়োজন নেই। কেবল সাধারণ কিছু কাজেই নিজেকে আপনি তুলে ধরতে পারবেন সমাজের মাঝে এবং ভালবাসবে সবাই। জেনে নিন এমনই ৭টি কৌশল।

১. “ব্যবহারেই বংশের পরিচয়”- এই কথাটি নিশ্চয়ই ছেলেবেলা থেকেই শুনে এসেছেন? জেনে রাখুন, এর চাইতে বড় সত্য আর হতে পারে না। আজকাল রাফ বিহেভ বা বেশী ক্যাজুয়াল আচরণ করাটাকেই স্মার্টনেস মনে করা হয়। কিন্তু আসলে এই ব্যাপারটি ভীষণ সাময়িক। নিজেকে মার্জিত ও রুচিশীল আচরণের একজন মানুষ হিসাবে গড়ে তুলুন, শুভ্র চিন্তা ও সুন্দর জীবন যাপনের চর্চা করুন। সকলের চোখে ক্রমশ হয়ে উঠবেন সম্মানিত।

২. কিছু সাধারণ ভদ্রতা সূচক অভ্যাস গড়ে তুলুন নিখুঁত ভাবে। যেমন- খাবার যাই হোক না কেন সেটা খুব সুন্দর ভাবে খাওয়া, সকলকে সম্মান করা, টেবিল ম্যানার, পার্টি ম্যানার, বয়স্কদের সাথে আচরণ, অফিস ও ক্যাম্পাস ম্যানার। এই জিনিসগুলো সকলের ভিড়ে আপনাকে ভীষণ অন্যরকম হয়ে উঠতে সহায়তা করবে।

৩. সুন্দরভাবে কথা বলা যে কাউকেই মুগ্ধ করে। সঠিক উচ্চারণে সুন্দর বাচনভঙ্গিতে কথা বলুন, আপনি চিন্তা করতে পারবেন না যে এই ব্যাপারটি আপনাকে কীভাবে রাতারাতি অন্যরকম করে তুলবে। এগুলো শেখার জন্য কোর্স করা যায়, প্রয়োজনে সেটাই করুন।

৪. অতি পুরাতন কথা- “জ্ঞানই শক্তি”। তবে পুরাতন কথা হলেও অত্যন্ত কার্যকর। কেবল চেহারা দিকে সেরা হবার দিন শেষ। সেরা যদি হতেই চান, আপনাকে অবশ্যই পারিপার্শ্বিকতা সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হবে। সকলে বিষয়েই কিছু না কিছু বলতে পারার মত তথ্য যখন আপনার কাছে থাকবে, সকলেই শুনবে মন দিয়ে আপনার কথা এবং বলাই বাহুল্য যে আপনাকে মূল্যও দেবেন।

৫. কখনোই অন্যের ঝামেলায় জড়াবেন না। একেবারেই না। যদি অন্যের ঝামেলায় জড়াতে হয় বা সমাধানে সাহায্য করতে হয়, সেটি নিরপেক্ষ ভাবে করবেন। কখনো পক্ষপাতদুষ্ট হবেন না কিংবা কারো উপকার করতে গিয়ে অন্যায় কাজ করবেন না।

৬. ছোটবেলা থেকেই আমরা শিখি সত্যবাদী হতে, কিন্তু হতে পারি কয়জন? একটা জিনিস জানবেন, একজন সত্যবাদী মানুষকে সকলে সমীহ ও শ্রদ্ধা করেন। তাঁদের ওপরে বিশ্বাসও করেন চোখ বুঝে। একজন সত্যবাদী মানুষে যা সম্মান, সমাজে আর কারো সেটা নেই। সত্যবাদী হওয়াটা সেরা হয়ে ওঠার সেরা উপায়।

৭. কখনও অন্যের গীবত করবেন না, কেউ গীবত করতে এলেও শুনবেন না। সকলকে তাঁর প্রাপ্য সম্মান দিন, কখনো কারো বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে যাবেন না। এই দারুণ আচরণগুলো আপনাকে করে তুলবে সহজেই সম্মানিত।
সূত্র: প্রিয়.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *