নিজেকে সাজিয়ে নিন মাত্র ১০ মিনিটে

সবসময় সুন্দর ও পরিপাটি থাকতে কে না চায়। কিন্তু এতো ব্যাস্ততার মাঝে আমাদের সময় কোথায়। সকালে ঘুম থেকে উঠে তাড়াহুড়া করে অফিস অথবা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে যেতে হয়। আয়নায় মুখটাকে যখন একদম সাদাসিধে অবস্থায় দেখেন তখন হয়ত মনে মনে ভাবেন ইশ যদি একটু সময় পেতাম, তাহলে হয়ত একটু সেজেগুজে যাওয়া যেত। তাই আজ আমরা এখানে এমন কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করব যার সাহায্যে আপনি অল্প সময়ে নিজেকে সাজিয়ে তুলতে পারবেন।

– ঠোঁটের সাজের ক্ষেত্রে লিপ্সটিক, লিপলাইনার, প্রাইমার ইত্যাদি না লাগিয়ে সরাসরি লিপগ্লস ব্যাবহার করতে পারেন। আজকাল বাজারে বিভিন্ন রঙের গ্লীটার যুক্ত অথবা প্লেইন লিপগ্লস, লিপআইস পাওয়া যায়। এটি যেমন লাগানো অনেক সহজ তেমনি এটি ঠোঁটে অনেকক্ষণ থাকে।

– আপনার মেকাপের সব জিনিসপত্র কখনো একসাথে রাখবেন না। ভারী সাজের জন্য যেগুলো সেগুলো একটা বক্সে আলাদা করে রেখে প্রতিদিনের ব্যাবহারের জিনিসগুলো হাতের কাছে রাখুন। এতে করে প্রতিদিন বাইরে যাওয়ার আগে আপনাকে সেগুলো খুজে খুজে সময় নষ্ট করতে হবে না।

– পাওডার অথবা মেকাপ লাগানোর জন্য বড় ব্রাশ ব্যাবহার করুন। কারন এটা দিয়ে খুব তাড়াতাড়ি মেকআপ লাগানো যায় এবং বড় ব্রাশ দিয়ে ব্লেন্ড করতে অনেক সুবিধা।

– যদি আপনি চোখে আইলাইনার লাগাতে চান তাহলে পেন্সিল লাইনার ব্যাবহার করুন। কারন এটি ব্যাবহার করতে অনেক সুবিধা। এছাড়া সবচেয়ে ভালো হয় যদি আইলাইনার ব্যাবহার না করে পেন্সিল কাজল ব্যাবহার করেন। কারন তাহলে চোখ শুকানোর জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। শুধু চোখের উপর একটানে কাজল একে নিলেই হবে।

– আপনার পর্যাপ্ত সময় না থাকতে আইলাইনার এর পরিবর্তে মাসকারা ব্যাবহার করতে পারেন। মাস্কারা খুলে নিয়ে চোখের নিচের দিক থেকে উপরের দিকে কার্ল করে কয়েকবার টেনে নিন। এতে করে আপনার চোখের পাতা ভারি দেখাবে।

– বাইরে বের হওয়ার সময় ফেস পাউডার ব্যাবহারের পরিবর্তে ক্রীম ফাউন্ডেশন অথবা বিউটি ক্রীম ব্যাবহার করতে পারেন। কারন এটি ব্লেন্ড করতে অনেক সুবিধা এবং সময় ও অনেক কম লাগে।

– সময় কম থাকলে কখনো আপনার মুখে নতুন কোনো রঙ অথবা প্রডাক্ট ব্যাবহার করবেন না। এতে হিতে বিপরীত ও হতে পারে। তাই এমন ধরনের প্রডাক্ট ও রঙ ব্যাবহার করুন যার সাথে আপনি আগে থেকেই পরিচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *