বিয়ার-ডিম এবং কলা একসঙ্গে মাথায় মেখেছেন কখনও? না হলে মেখে দেখুন কী ম্যাজিক অপেক্ষা করছে?

বিয়ারের মধ্যে অ্যালকোহলের মাত্রা খুব একটা বেশি থাকে না। তাই নিরাপদ নেশার পানীয় হিসাবে যথেষ্টই কদর বিয়ারের।
বিশেষ করে চুলের যত্ন নেওয়ায় এবং ফেসিয়াল ট্রিটমেন্টের ক্ষেত্রে বিয়ারের গুরুত্ব মারাত্মক রকমের। বলা হচ্ছে, এই বিয়ারের সঙ্গে যদি কাঁচা ডিমের কুসুম, মধু ও কলা মিশিয়ে নিয়ে মাথায় মাখা যায়, তা হলে তা চুলের পক্ষে অত্যন্ত ভাল। বিশেষ করে যাঁদের ঘন ঘন চুল ওঠে যাচ্ছে বা অকালে মাথায় টাক পড়ে যাচ্ছে, তাঁরা বিয়ারের মিশ্রণকে শ্যাম্পুর মতো ব্যবহার করে চুলের ঝরে পড়া অনেকটা পরিমাণে রোধ করতে পারেন।

চুলের সমস্যায় ভোগা ৯৫ শতাংশ মানুষেরই পেটের সমস্যা রয়েছে। এছা়ড়াও রয়েছে খুসকির সমস্যা। তাই সপ্তাহে অন্তত দু’দিন যদি বিয়ারের সঙ্গে কাঁচা ডিমের কুসুম মিশিয়ে, মধু দিয়ে এবং কলা মেখে চুলের গোড়ায় লাগানো যায়, তাহলে চুল ঝরে পড়া যেমন কমে যায়, তেমনি দূর হয় খুসকি। মহিলা এবং পুরুষ- যাঁরা চুলের সমস্যায় ভুগছেন তাঁরা এই বিয়ারের মিশ্রণ মাথায় লাগিয়ে দেখতে পারেন।

কীভাবে বিয়ারের এই পথ্য তৈরি করবেন? জেনে নিন—

১. এক কাপ বিয়ার নিন।

২. কাঁচা ডিমের হলুদ কুসুমের অংশটুকু নিন।

৩. অর্ধেক পাকা কলা পিষে বিয়ারের মধ্যে ঢেলে দিন।

৪. ১ থেকে ২ চামচ মধু মিশিয়ে দিন বিয়ারের মধ্যে।

সমস্ত উপকরণকে ভালভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এর পর চুলের গোড়ায় ভাল করে লাগাতে হবে। ঘণ্টাখানেক মাথায় এই মিশ্রণ লাগিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে মাথা থেকে বিয়ারের মিশ্রণটাকে ধুয়ে ফেলুন। ১ মাস এই রুটিন ফলো করলেই দেখতে পাবেন, মাথার চুল আগের থেকে অনেক সতেজ এবং ভাল দেখতে হয়ে উঠেছে।

⇒ ভালো লাগলে প্লিজ বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন শেয়ার করতে √ এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *