মাংসের চাপ তৈরির সহজ রেসিপি

নাম শুনেই জিহ্বায় জল আসার কথা। কারণ যারা খেয়েছেন তারা জানেন কতটা সু-স্বাদু। তবে রেস্তরাঁর গরুর চাপ যতই সু-স্বাদু হোক না কেন, বগুড়া কলোনীর (চুন্নু মামার) চাপের যেন তুলনা হয় না। বিশ্বাস করছেন না একবার নিজে তৈরি করে খেয়েই দেখুন।shajghor_Beef chapউপকরণ –
গরুর মাংস – আধা কেজি (টুকরা করে কেটে নেওয়া। টুকরা গুলো একটু বড় হলে ভাল হয়)
পেঁয়াজ বাটা – ১ টেবিল চামচ
গুঁড়া মরিচ – ১ চা চামচ
আদা বাটা – ১ টেবিল চামচ
রসুন বাটা – ১/২ টেবিল চামচ
জিরা গুঁড়া – ১ চা চামচ
টক দই – ২ টেবিল চামচ
গরম মশলা গুঁড়া – ১ টেবিল চামচ (দারচিনি, এলাচ, লবঙ্গ, তেজপাতা, জায়ফল, জয়িত্রী, কাবাব চিনি, শাহী জিরা অল্প করে মিশিয়ে খুব হাল্কা ঢেলে নিয়ে গুঁড়া করে নিতে হবে। জায়ফল, জয়িত্রী আর শাহী জিরার পরিমাণে একেবারেই কম নিতে হবে, নতুবা তিতা লাগবে)
লবণ – স্বাদ মতো
খোসা সহ পেঁপে বাটা – দেড় চা চামচ
সয়াবিন তেল – আধা কাপ (চাইলে সরিষার তেলও ব্যাবহার করতে পারেন।

পদ্ধতি –
– প্রথমে গরুর মাংস এক ইঞ্চি পুরু করে টুকরা করে নিয়ে মাংস ছেঁচার হাতুড়ি দিয়ে ভাল করে ছেঁচে নিন। বাসায় মাংস ছেঁচার হাতুড়ি না থাকলে শিল পাটায়-ও ছেঁচে নিতে পারেন।

– এরপর মাংসে টক দই, মরিচ গুঁড়া, পেঁয়াজ বাটা, আদা – রসুন বাটা, জিরা গুঁড়া, গরম মশলা গুঁড়া, পেঁপে বাটা, স্বাদ মত লবণ, জর্দার রঙ ও তেল দিয়ে খুব ভালো করে মেখে ২-৪ ঘণ্টা রেখে দিন।

– ৩/৪ ঘণ্টা পরে একটি নন-স্টিক প্যান, গ্রিল প্যান অথবা পুরু লোহার তাওয়া/কড়াই ভাল করে গরম করে নিয়ে তাতে অল্প করে তেল দিয়ে গরম হলে এতে মশলা মাখা গরুর মাংসের টুকরা গুলো প্যানের আকার বুঝে ২/৪ টা করে করে দিয়ে হালকা আঁচে ভাজতে থাকুন।

– মাংস সেদ্ধ হয়ে ভাজা ভাজা হয়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

– যদি পরোটা, লুচি বা নান রুটির সাথে পরিবেশন করতে চান, তবে একটু লালচে করে ভেজে নেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *