সঠিক স্যানিটারি ন্যাপকিন নির্বাচনের ৮টি টিপস!

পিরিয়ড কালীন সময়ে আধুনিক জীবনে নারীদের একটি বড় সুবিধা করে দিয়েছে স্যানিটারি ন্যাপকিন। কিন্তু এর আছে বেশ কিছু স্বাস্থ্যঝুকিও! সঠিক স্যানিটারি ন্যাপকিন নির্বাচন করতে না পারলে এটা হয়ে ওঠে জরায়ু ও মুত্রথলির সংক্রমণসহ নানা প্রকারের ক্যান্সারের কারণ।তাই সঠিক স্যানিটারি ন্যাপকিন নির্বাচনে আপনার জন্যে রইলো কিছু টিপসঃ

১) লম্বা ও লিকেজ প্রতিরোধীঃ
আকারে ছোট কিন্তু চওড়া প্যাড অনেকে ব্যবহার করে থাকলেও সুরক্ষা পেতে বেছে নিন লম্বা আকারের প্যাড। যা আপনার সুরক্ষা যেমন নিশ্চিত করবে, তেমনি বাতাস চলাচলে সুবিধা হবে। সেই সাথে আপনি যেমন খুশি বসতে, শুতে, হাঁটতে বা দৌড়াতে পারবেন। লিকেজের ভয় থাকবে না।

২) শোষণক্ষমতাঃ
শোষণ ক্ষমতার দিকে নজর দিন। একটু মোটা ধরনের প্যাড কিনতে পারেন। হেভী ফ্লো প্যাডগুলো আপনার রক্তকে জেলে পরিণত করলেও খেয়াল রাখুন ৫ ঘন্টা পর পর সেটি বদলে ফেলার।

৩) যথেষ্ট আঠা/ উইংসযুক্তঃ
প্যাডটি আপনার অন্তর্বাসের সাথে লাগানোর জন্যে যথেষ্ট আঠা আছে কিনা খেয়াল করুন। আঠার মান ভালো না হলে ঘামে ভিজে সেটি খুলে যেতে পারে। উইংস যুক্ত প্যাড কিনুন। এটি আপনাকে বাড়তি সুরক্ষা দেবে।

৪) বাতাস চলাচলে সহায়কঃ
বাতাস চলাচলে সহায়ক কিনা দেখে নিন। সুতি বা তুলোর প্যাড বেছে নিন।

৫) ব্লিডিং এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণঃ
আপনার কি পরিমাণ ব্লিডিং হয়, সে অনুযায়ী প্যাড কিনুন।

৬) স্থানচ্যুতি প্রতিরোধীঃ
এমন প্যাড কিনুন যা সহজে আপনার অন্তর্বাস থেকে সরে যাবে না বা একটু পর পর আপনাকে ঠিক করার চিন্তায় থাকতে হবে না।

৭) বেল্ট সিস্টেম সবসময় ব্যবহার করবেন নাঃ
বেল্ট সিস্টেম কেবল সমস্যায় পড়লেই ব্যবহার করুন। কেননা এটি এমনভাবে শরীরের সাথে লেগে থাকে যে, বাতাস চলাললে বাধা পেয়ে স্থানটি স্যাঁতসেঁতে হয়ে পড়ে ও ব্যাক্টেরিয়া সহজেই জন্মায়।

৮) তিন স্তরের বৈশিষ্ট্য খেয়াল করুনঃ

• প্রথম স্তরঃ
এখানে সাধারনত সুতির, নেটের বা কৃত্রিম তন্তুর আস্তরণ থাকে। কৃত্রিম তন্তুর কারণে কারো কারো এলার্জি হতে পারে। তাই এটি এড়িয়ে চলুন।

• দ্বিতীয় স্তরঃ
এখানে শোষণক্ষমতা যুক্ত উপাদান যেমন তুলা, রিসাইকেল করা তন্তু বা শোষণ উপযোগী অন্যান্য উপাদান থাকে। সস্তা মানের ন্যাপকিন গুলোয় রিসাইকেল করা উপাদানের জন্যে নানান রকম কেমিকেলের প্রভাব থাকে, যা আপনার জরায়ুতে সংক্রমনের জন্যে দায়ী। প্যাডের কারনে র‍্যাশ বা চুলকানী হলে তা বদলে ফেলুন।

• তৃতীয় স্তরঃ
এতে আঠা লাগানো থাকে, আপনার অন্তর্বাসে আটকানোর জন্যে। খেয়াল রাখুন এ অংশটি যাতে যথেষ্ট আঠালো থাকে কিন্তু ভারী বা শক্ত না হয়, তাহলে আপনার দেহের তাপমাত্রার সাথে মানিয়ে নিতে সমস্যা হতে পারে।

কেবল আরামদায়কই নয়, স্বাস্থ্যের জন্যে বেছে নিন সঠিক ও স্বাস্থ্যকর স্যানিটারি ন্যাপকিন Sanitary napkins । পিরিয়ডের দিনগুলোতেও থাকুন সুস্থ্য ও সুরক্ষিত।

⇒ ভালো লাগলে প্লিজ বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন শেয়ার করতে √ এখানে ক্লিক করুন

তথ্যসুত্রঃ প্রিয় লাইফ