সমস্ত শরীরের রূপচর্চায় ভিনেগারের ব্যবহার

বহুমুখী গুণসম্পন্ন ভিনেগার ত্বকে ব্রণ ওঠা প্রতিরোধ করে। কাজে লাগতে পারে আপনার ফেসিয়ালে, ত্বককে বাঁচায় রোদে পোড়া ক্ষতির হাত থেকে। সমস্ত শরীরের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। আসুন জেনে নিই রূপচর্চায় ভিনেগারের এমনই বহুবিধ ভিন্ন ভিন্ন ব্যবহার সম্পর্কে।


ত্বকের কালো দাগ দূর করে :
ত্বকে অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের কালশিটে দাগ হয়ে থাকে। এই ধরনের দাগ দূর করতে ভিনেগার অত্যন্ত উপকারী। এর জন্য সুতি কাপড় বা তুলাতে ভিনেগার ভিজিয়ে ত্বকের কালো অংশে লাগিয়ে রাখুন। এক ঘন্টা পরে তা ধুয়ে ফেলুন।

উজ্জ্বলতা রক্ষার্থে :
সমস্ত শরীরের উজ্জ্বলতা রক্ষার্থে এই ভিনেগার বেশ কার্যকর। এর জন্য বাথটাবে নির্দিষ্ট পরিমাণ হালকা গরম পানির ভেতরে প্রায় ৮ ছটাক অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার দিন এবং এর মধ্যে ১৫ মিনিট শরীরটাকে ভিজিয়ে রাখুন। শরীরের ত্বকের বিভিন্ন স্থানের রঙের ভারসাম্য রক্ষার্থে সাহায্য করে থাকে।

ফেসিয়াল টোনার :
রান্নার কাজে ব্যবহার্য এই ভিনেগার ফেসিয়াল টোনার হিসেবেও কাজ করে। এর জন্য ২ কাপ পানিতে এক টেবিলচামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার দিন। এতে সুতি কাপড় ভিজিয়ে তা মুখে লাগান। শুকিয়ে টানটান না হওয়া পর্যন্ত ধুয়ে ফেলবেন না। অ্যাপেল সিডার ভিনেগারে প্রাকৃতিক আলফা হাইড্রোক্সি অ্যাসিড এবং অ্যাসিটিক অ্যাসিড রয়েছে যা ত্বকের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করে ও ছিদ্রপথ পরিস্কার করে।

রোদে পোড়া থেকে ত্বককে বাঁচায় :
রোদে পোড়ার কারণে ত্বকে বিভিন্ন দাগ পড়ে যায়। এই দাগগুলো দূর করতে ভিনেগারের ব্যবহার বেশ ফলদায়ক। এর জন্য ৪ কাপ পানির ভেতরেও ১/২ কাপ ভিনেগার মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটিতে একটি পরিস্কার কাপড় ভিজিয়ে তা পোড়া দাগে ব্যবহার করুন। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ত্বকের পিএইচ এর ভারসাম্যকে রক্ষা করে এবং ত্বকের পোড়া দাগ দূর করে ফেলে।