সুস্থ্য থাকতে দৌড়ানোর কিছু উপকারিতা

হার্ট সুস্থ্য রাখে: নিয়মিত দৌড়ালে হার্ট ভালো থাকে, কারণ এটি কার্ডিও ব্যায়াম,যাতে পুরা শরীরে রক্ত সঞ্চালন হয়| ফলে হার্টের মাসেল ভালো থাকে, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে, স্ট্রোক ও হার্টের অসুখ হতে বাধা দেয়|

ক্যালরি বার্ন করে: দৌড়ালে হাঁটার চাইলে অনেক বেশি ও দ্রুত ক্যালরি বার্ন হয়

ওজন কমে: দৌড়ালে দ্রুত ক্যালরি বার্ন হবার ফলে তাড়াতাড়ি ওজন কমে

ফ্যাট বার্ন হয়: ক্যালরি বার্ন হবার ফলে ফ্যাট বার্ন হয়|দৌড়ালে শরীরের ওজন নিয়ে দৌড়াতে হয়, তাই এটি একটি বডি ওয়েট ব্যায়াম, তাই ফ্যাট বার্ন হয়, লিন মাসেল বাড়ে,মেটাবলিসম বাড়ে, ফলে আপনি বিশ্রামে থাকলেও ফ্যাট বার্ন হতে থাকে| ফলে শরীরের সুন্দর শেপ হয়|

শারীরিক শক্তি বাড়ে: নিয়মিত দৌড়ানো একটি কঠিন পরিশ্রমের কাজ, তাই দৌড়ালে শারীরিক শক্তি অনেক বৃদ্ধি পায়|ফলে দৈনন্দিন কাজ কর্মে অনেক শক্তি পাওয়া যায়|তাছাড়া শারীরিক ক্লান্তি বা অবসাদও দূর হয় নিয়মিত দৌড়ালে|

মাসেলের ঘনত্ব ও শক্তি বাড়ে: দৌড়ালে পুরা মাসেলে রক্ত সঞ্চালনের কারণে মাসেলের শক্তি বাড়ে,ফলে পরবর্তিতে মাসেলের ইনজুরি রোধ করা যায়|ফ্যাট কমার কারণে মাসেল বাড়ে|

জয়েন্টের শক্তি বাড়ে: নিয়মিত দৌড়ালে হাড়ের জয়েন্টের শক্তি বাড়ে, কারণ লিগামেন্ট ও টেন্ডনগুলোর শক্তি বাড়ে| ফলে জয়েন্ট মাসেলগুলোর ইনজুরি রোধ করা যায়|

হাড়ের রোগ প্রতিরোধ করে: নিয়মিত দৌড়ালে, হাড়ের রোগ, যেমন: Osteoporosisপ্রতিরোধ করে|দৌড়ানোর ফলে মাসেল ও হাড়ের কাজ হয়|ফলে হাড়ের গঠন মজবুত হয় ও হাড়ের নানা রকম রোগ প্রতিরোধ করে|

বক সুন্দর হয়: নিয়মিত দৌড়ালে সারা শরীরে রক্ত সঞ্চালন হয়| ফলে শরীরে অঙ্গগুলো পুষ্টি পায়, শরীরের বিষাক্ত উপাদানগুলো বের হয়ে যায়| তাই ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়| তাছাড়া ফ্যাট কমার কারণে ত্বক টান টান ও মসৃন হয়, ফলে বয়স কম মনে হয়|নিয়মিত দৌড়ালে শারীরিক বৃদ্ধির হরমন বাড়ে, ফলে বয়সের ছাপ সহজে পড়ে না|

ব্রেইনের কার্যক্ষমতা বাড়ায়: দৌড়ালে সারা শরীরের দ্রুত রক্ত সঞ্চালন হয়,ফলে ব্রেইনে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সরবরাহ করে ও পুষ্টি পায়|তাই ব্রেইনের কাজ করার ক্ষমতা বাড়ায়|

ফুসফুস শক্তিশালী করে: নিয়মিত দৌড়ালে ফুসফুসেরও ব্যায়াম হয়, ফলে শ্বাসপ্রশ্বাসকে স্বাভাবিক রাখার পাশাপাশি ফুসফুস শক্তিশালী থাকে|

মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে: শরীর ভালো রাখা ও ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকার পাশাপাশি দৌড়ালে মন ভালো থাকে, ফলে মানসিক অবসাদ দূর হয়, আত্মবিশ্মাস বাড়ে|ফলে প্রতিদিনের স্ট্রেস,টেনশন, মানসিক সমস্যাগুলো দূরে থাকে| গবেষনায় প্রমানিত হয়েছে যে, দৌড়ালে মন ভালো রাখার পাশাপাশি আপনার সব সময় এক ধরনের সুখ অনুভব হবে, ফলে রাগ নিয়ন্ত্রণে থাকবে, কাজের লক্ষ্য ঠিক থাকবে, মানসিক দৃঢ়তা ও সংকল্প বাড়বে, ধৈর্য বাড়বে,নিজেকে সুন্দর ভাবে নিয়ন্ত্রণও করা যাবে|

উদ্বেগ কমে:গবেষনায় প্রমানিত হয়েছে যে,নিয়মিত দৌড়ালে ব্রেইনে সেরাটোনিন নামে যে হরমোনের কারণে মুড নিয়ন্ত্রিত হয়, তা কম নি:স্বরণ হয়, ফলে মানসিক উদ্বেগ কমে|

ঘুম ভালো হয়:নিয়মিত দৌড়ালে শরীর ক্লান্ত থাকার ফলে ও সারা শরীরের রক্ত সঞ্চালনের ফলে রাতের ঘুম খুব ভালো হয়|ফলে যাদের ঘুমের সমস্যা আছে, তারা দৌড়ালে উপকার পাবেন|

ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণ করে: গবেষনায় প্রমানিত হয়েছে যে, নিয়মিত দৌড়ালে রক্তে চিনির মাত্রা ঠিক থাকে এবং ইনসুলিনের মাত্রাও ঠিক থাকে,তাই ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে|

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে ও শরীর সুস্থ্য থাকে: নিয়মিত দৌড়ালে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, ফলে সাধারণ অসুখ বিসুখ, যেমন: ঠান্ডা,জ্বর,হজমের সমস্যা,মেয়েলি সমস্যা, এলার্জি, শ্বাসকষ্ট, হাপানি, মাথাব্যথা, ব্যাক পেইন, অলসতা ইত্যাদি কাবু করতে পারে না| এমনকি গবেষনায় প্রমানিত হয়েছে, নিয়মিত দৌড়ালে ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করা যায়|তাছাড়া দৌড়ালে রক্তে ভালো কোলেস্টরেল এর মাত্রাও বাড়ে|

দৌড়ানোর এত উপকারিতা জানলেন, তাহলে আর দেরি কেন? যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দৌড়ানো শুরু করুন|কারণ গবেষনায় প্রমানিত হয়েছে যে, নিয়মিত দৌড়ানো হাঁটার চাইতে ভালো ব্যায়াম| তাছাড়া নিয়মিত দৌড়ালে উপরোক্ত এতগুলো শারীরিক উন্নতির ফলে নিজেকে সবসময় সবদিক দিয়ে যোগ্য ও শক্তিশালী মনে হয়|

No comments

  1. very important and useful topics
    .

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *