​পহেলা বৈশাখের সাজ

shajghor_pohela boisakhi shaj
বৈশাখের সাজে নিজেকে রাঙাতে প্রস্তুত সব বয়সী বাঙালি নারী। তরুণীদের মাঝে সে প্রবণতা আরও অনেক বেশি। নিজেকে ইচ্ছামতো রাঙাতে কারো নেই একটুও ক্লান্তি। সারাদিনের ঘোরাফেরা শেষেও সাজগোজে নিজেকে অনন্য রাখতে চান। এই গরমে স্বস্তির সঙ্গে নিজের সাজকে সুন্দর রাখতে শিখে নিতে পারেন দারুন কিছু কৌশল।

মেকআপ –
প্রচণ্ড গরম আর রোদের তাপে মেকআপ নষ্ট হওয়ার ভয় থাকে। বৈশাখী সাজে মেকআপ ঠিক রাখতে বেছে নিতে পারেন হাল্কা বেইজের কিছু। তাই বেছে নিতে পারেন অয়েল ফ্রি বা ওয়াটার প্রুফ মেকআপ। তবে তা অবশ্যই স্বাভাবিক মানের হওয়া চাই।

চোখের সাজ –
চোখে লাগাতে পারেন হাল্কা আই শ্যাডো আর মাশকারা। এ ক্ষেত্রে কাজল, আই লাইনার বা মাশকারা অবশ্যই ওয়াটার প্রুফ হতে হবে। চোখের চারদিকে ছড়িয়ে পড়া এড়াতে কাজল দেওয়ার পর হাল্কা একটু পাউডার দিয়ে নেবেন। তাতে আর কাজল ছড়ানোর ভয় থাকবে না।

ঠোঁটের সাজ –
গাঢ় দিতে চাইলে অবশ্যই লাল রঙের লিপস্টিক ব্যবহার করতে হবে। অন্যদিকে হালকা রঙের লিপস্টিকও ব্যবহার করতে পারেন। তবে রঙটা যেন অবশ্যই আপনার পোশাকের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়। অপেক্ষাকৃত হালকা রঙই ভালো লাগে বেশি।

কপালের সাজ –
কপালে ছোট বা বড়  লাল টিপই বেশি মানাবে। অন্য রঙের টিপও ব্যাবহার করতে পারেন, সেক্ষেত্রে এখানেও পোশাকের রঙের সঙ্গে মিল রাখা বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। তবে, এক্ষেত্রে গাঢ় রঙ অত্যাবশ্যকীয়।

চুলের সাজ –
বড় চুলের সাজে করতে পারেন খোঁপা বা বেণী। শাড়ি বা সালওয়ার কামিজ যাই পরুন না কেন, চুলে খোঁপা বা বেণী দুটোই ভালো মানায়। এ ক্ষেত্রে হাত খোঁপা করে চুলের দু পাশে বা পুরোটা জুড়ে গেঁথে নিতে পারেন দেশি ফুলের মালা। মানানসই কাটে মাঝারি বা ছোট চুল ছেড়ে দিলেও ভালো মানায়। উৎসবের দিন সেটাকে আয়রন করে একপাশে রেখে দিতে পারেন। ছোট্ট কোনো ব্যান্ড দিয়েও হাল্কা হাতে একটু অগোছালো করে আঁটকে নিতে পারেন। তবে তাতেও ফুল থাকা চাই। এছাড়া মাথায় দিতে পারেন ফুলের তাজ। উৎসবের এই দিনকে আরও বেশি মোহনীয়তা দিতে মাথায় ফুলের তাজের তুলনা হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *